1. hrhfbd01977993@gmail.com : admi2017 :
  2. editorr@crimenewsmedia24.com : CrimeNews Media24 : CrimeNews Media24
  3. editor@crimenewsmedia24.com : CrimeNews Media24 : CrimeNews Media24
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৯:১৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
"ফটো সাংবাদিক আবশ্যক" দেশের প্রতিটি থানা পর্যায়ে "ক্রাইম নিউজ মিডিয়া" সংবাদ সংস্থায় ১জন রিপোর্টার ও ১জন ফটো সাংবাদিক আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীরা  যোগাযোগ করুন। ইমেইলঃ cnm24bd@gmail.com ০১৯১১৪০০০৯৫
সংবাদ শিরোনাম ::
ঢাকাবাসীকে সুন্দর জীবন উপহার দিতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী জোটের শরিক দলগুলোকে সংগঠিত ও জনপ্রিয় করতে নির্দেশনা দিয়েছেন শেখ হাসিনা বিএসআরএফ বার্তা’র মোড়ক উম্মোচন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করার জন্য বৌদ্ধ নেতাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান কৃষি খাতে ফলন বাড়াতে অস্ট্রেলিয়ার প্রযুক্তি সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলের অনুমতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী : ওবায়দুল কাদের সামান্য অর্থ বাঁচাতে গিয়ে বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে উপেক্ষা করে দেশ ধ্বংস করবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে কেউ যেন বৈষম্যের শিকার না হন: রাষ্ট্রপতি ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী বিদেশী সাহায্যপ্রাপ্ত প্রকল্পগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বেসরকারি ঋণে দুরন্ত গ‌তি

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ৪.৩৯ পিএম
  • ১৮৭ বার পড়া হয়েছে

করোনার প্রভাব কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের বেসরকারি খাত। বাড়ছে আমদানি-রপ্তানি। চাঙা হচ্ছে অর্থনী‌তি। করোনাকালীন সময়ের আগের অবস্থায় ফিরে আসতে শুরু করেছে সবকিছু। ফলে গতি ফিরছে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবাহে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সবশেষ তথ্য বলছে, ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহের প্রবৃদ্ধি নভেম্বরের চেয়ে দশমিক ৫৭ শতাংশ পয়েন্ট বেড়ে ১০ দশমিক ৬৮ শতাংশে উঠেছে। যা নভেম্বরে ছিল ১০ দশমিক ১১ শতাংশ। এছাড়া অক্টোবরে বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহের প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৯ দশমিক ৪৪ শতাংশ। সেপ্টেম্বরে হয়েছিল ৮ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

খাত সংশ্লিষ্টরা বলেন, বেশি পরিমাণে আমদানি বৃদ্ধি, বিশেষ করে মূলধনী যন্ত্রপাতির আমদানি বাড়ার ফলে বেসরকারি খাতের ঋণ বাড়ছে।

এ বিষয়ে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘বেসরকারি খাতের ঋণের প্রবৃদ্ধি বাড়া অর্থনীতির জন্য খুবই ভালো দিক। এর মাধ্যমে দেশে বিনিয়োগ বাড়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে। তার মানে নতুন বছর বিনিয়োগের একটি ইতিবাচক আবহ নিয়েই শুরু হচ্ছে।’

কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন এ খাতে ফের কিছুটা প্রভাব ফেলবে আশঙ্কা করে তিনি বলেন, জানুয়ারির শুরু থেকে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এর ফলে আগামী মাসে বেসরকারি ঋণ কিছুটা কমবে। তবে ফেব্রুয়ারিতে আবার বাড়বে বলে প্রত্যাশা তার। তিনি বলেন, বেসরকারি খাতের ঋণ ২০ শতাংশে যেতে পারে। এতে অর্থনীতিতে পুরোপুরি গতি ফিরবে। এর বেশি হলে কিছুটা সমস্যাও রয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, কোভিডের কারণে গত মে মাসে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহের প্রবৃদ্ধি খুবই কম ছিল। সে সময়ে ৭ দশমিক ৫৫ শতাংশে ঋণের প্রবৃদ্ধি নেমেছিল। এরপর থেকে তা ধারাবাহিকভাবে ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ছে।

এর আগে ২০২১ সালের প্রথম মাস জানুয়ারিতে এই প্রবৃদ্ধি ছিল ৮ দশমিক ৪৬ শতাংশ। ফেব্রুয়ারি ও মার্চে ছিল যথাক্রমে ৮ দশমিক ৫১ ও ৮ দশমিক ৭৯ শতাংশ। এপ্রিলে নেমে আসে ৮ দশমিক ২৯ শতাংশে। মে মাসে তা আরও কমে নেমে যায় ৭ দশমিক ৫৫ শতাংশে। তবে করোনার প্রকোপ কমতে থাকায় জুনে ঋণ প্রবৃদ্ধি খানিকটা বেড়ে ৮ দশমিক ৩৫ শতাংশে উঠে কিছুটা পুনরুদ্ধার হয়। তারপর থেকে ঋণপ্রবাহ ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। জুলাই ও আগস্টে এই সূচক ছিল যথাক্রমে ৮ দশমিক ৩৮ ও ৮ দশমিক ৪২ শতাংশ।

এ বিষয়ে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা এ বি মির্জা মো. আজিজুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, করোনার প্রভাব কমে আসায় ব্যবসা-বা‌ণিজ্য চাঙা হয়েছে, শিল্প-কারখানা পুরোপু‌রি চালু হয়েছে। রপ্তানি আদেশ আসছে। আমদা‌নিও বেড়েছে। অর্থনী‌তি সচল হওয়ায় বেসরকারি ঋণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটা দেশের অর্থনীতির জন্য খুবই ভালো দিক। কারণ বি‌নিয়োগ বাড়া মানে ব্যবসার প‌রি‌ধি বাড়বে, নতুন কর্মসংস্থান হবে।

তবে এসব বিনিয়োগ বা ঋণ সঠিক জায়গায় হচ্ছে কি না সে বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার পরামর্শ দি‌য়ে এ অর্থ উপদেষ্টা বলেন, পূর্ব অভিজ্ঞতা অনুযায়ী, বিনিয়োগ বাড়লে অর্থ পাচারের আশঙ্কা সৃ‌ষ্টি হয়। তাই বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে তদার‌কির মধ্যে রাখতে হবে। ঋণ প্রবাহ যেন ঋণ উৎপাদনশীল খাতে বে‌শি যায় পাশাপা‌শি এক খাতের ঋণ নিয়ে অন্য জায়গায় না চলে যায়, এ বিষ‌য়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন এই জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে (জুলাই-নভেম্বর) ৩ হাজার ১৬৬ কোটি ডলারের বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি হয়েছে। এই অংক গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫৩ দশমিক ৯৭ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছরের এ পাঁচ মাসে আমদানি হয়েছিল ২ হাজার ২৪ কোটি ডলারের পণ্য।

এছাড়া জুলাই-নভেম্বর সময়ে ইপিজেডসহ অন্যরা বিভিন্ন ধরনের পণ্য রফতানি করে এক হাজার ৮৬৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার আয় করেছে বাংলাদেশ। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ২২ দশমিক ৬৫ শতাংশ বেশি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_crimenew87
© All rights reserved © 2015-2021
Site Customized Crimenewsmedia24.Com